1. [email protected] : Admin :
দু-একদিনের মধ্যে ঘুরে দাঁড়াবে শেয়ারবাজার: শিবলী রুবাইয়াত - Welcome
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন

দু-একদিনের মধ্যে ঘুরে দাঁড়াবে শেয়ারবাজার: শিবলী রুবাইয়াত

  • টাইম আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২
  • ১২৭ কত বার দেখা হয়েছে

অর্থনৈতিক মন্দার কবলে থাকা শ্রীলঙ্কার শেয়ারবাজারে বড় দরপতনের পরও বাংলাদেশের শেয়ারবাজার চলছে উল্টো দিকে। কলম্বো স্টক এক্সচেঞ্জে গতকাল সব সূচকে বড় উল্লম্ফন দেখা গেছে। এছাড়া ভারতের শেয়ারবাজার ঘুরে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু দেশের পুঁজিবাজার কোন পথে যাচ্ছে, সে প্রশ্ন এখন লাখ লাখ বিনিয়োগকারীর কাছে। গত তিন কার্যদিবসে সূচকের দামের তীব্র পতনের পরিপ্রেক্ষিতে বিনিয়োগকারীরা বাজারের অস্থির আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স 100 পয়েন্ট হারিয়ে 10 মাসের সর্বনিম্ন অবস্থানে দাঁড়িয়েছে। এই সপ্তাহে তিন কার্যদিবসে সূচক 255 পয়েন্ট কমেছে।

তাছাড়া বিএসইসি-আইসিবি দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে পুঁজিবাজার ইস্যুতে চারটি বাজার-বান্ধব সিদ্ধান্ত সত্ত্বেও সূচকের তীব্র পতন নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠেছে। সবার প্রশ্ন এখন দেশের শেয়ারবাজার আবার উল্টো দিকে যাচ্ছে। পুঁজিবাজারের পতনে একটি অদৃশ্য শক্তি কাজ করছে। নিয়ন্ত্রক বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে এখনই বাজার-বান্ধব সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

অন্যথায় বিনিয়োগকারীরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। তবে শেয়ারবাজারে ক্রমাগত পতনের কারণে বিনিয়োগকারীরা সব শেয়ারের জন্য নতুন ন্যূনতম মূল্য বা ফ্লোর প্রাইস দাবি করলেও নিয়ন্ত্রক বিএসইসির সে বিষয়ে কোনো উদ্বেগ নেই।

শেয়ারবাজারের এমন পরিস্থিতিতে বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম একটি অনলাইন পোর্টালকে বলেন, শেয়ারবাজার যতটা পতন হয়েছে দু-একদিনের মধ্যে সেরে উঠবে। বিনিয়োগকারীরা কেউই লোকসানে শেয়ার বিক্রি করবেন না। ধৈর্য ধরুন, বাজার ভালো থাকবে। এছাড়া ফ্লোরের দাম দেওয়ার কোনো ইচ্ছা নেই।

রোড শো করে বিদেশি বিনিয়োগ আনার চেষ্টা করছি। আমি ছয় মাস ধরে চেষ্টা করছি এই জায়গায় বাজার আনতে। ফ্লোর প্রাইস দিলে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা আসতে চায় না। এতে বিদেশি বিনিয়োগ কমে যাচ্ছে। তারা মনে করেন বাজার স্থিতিশীল নয়। তারা সুষ্ঠু বাজার চায়।
প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, এ ধরনের সিদ্ধান্ত বিদেশি বিনিয়োগকে নিরুৎসাহিত করে। তিনি আরও বলেন, মার্চে সর্বোচ্চ দর সীমা ২ শতাংশে নামিয়ে আনায় বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ এসেছে।

তিনি আরও বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের সময় সার্কিট ব্রেকার 2 শতাংশে নামিয়ে আনার কারণে অনেক বিদেশী বিনিয়োগও হারিয়ে গেছে। আনুমানিক ১২-১৩ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হয়েছে। ফলস্বরূপ, আমি আবার ফ্লোর প্রাইস নিয়ে বাজারে পুশ ব্যাক করতে চাই না। ‘

Source link

নিউজটি শেয়ার করুন সোশ্যাল মিডিয়াতে..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরণের আরো খবর জানতে..
© All Rights Reserved © 2022 www.dailyprobash.com
Bangla News DailyProbash.com