1. [email protected] : Admin :
পাসপোর্ট নিয়ে প্রবাসীদের দুর্ভোগের শেষ কোথায় - Welcome
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

পাসপোর্ট নিয়ে প্রবাসীদের দুর্ভোগের শেষ কোথায়

  • টাইম আপডেট : বুধবার, ১৮ মে, ২০২২
  • ১৫১ কত বার দেখা হয়েছে

বিশ্বের নবম দুর্বলতম পাসপোর্ট পেয়ে দুর্ভোগ কোনো শেষ নেই। পাসপোর্ট পথ সরকারী ফি, সেইসাথে আমলাতান্ত্রিক লাল টেপ এবং অদক্ষতার একটি সিস্টেম চেয়ে বেশি খরচ। একটি ওমানি প্রবাসী নামে মো। ফজলুল হক 23 মে বাংলাদেশ দূতাবাসে তার কাগজপত্র পেশ ওমান গত বছরের তার পাসপোর্ট নবায়ন করতে। এক বছর পেরিয়ে গেছে কিন্তু তার ওয়েটিং শেষ হয়নি।

এদিকে, এক বছর বর্তমান পাসপোর্টের মেয়াদ যেহেতু পেরিয়ে গেছে। বিদেশে অবৈধ হচ্ছে তাই ফজলুল হক উদ্বেগ এবং চিন্তা সঙ্গে কাটা হয়। প্রবাসী ফজলুল হক, একা নয় প্রবাসী বাংলাদেশীদের হাজার হাজার পাসপোর্ট পেতে এই ধরনের উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

বিশ্বের নবম দুর্বল পাসপোর্ট পেতে ভোগান্তির শেষ নেই। একটি পাসপোর্ট পেতে সরকারী ফি, সেইসাথে আমলাতান্ত্রিক লাল ফিতা এবং অদক্ষতার একটি সিস্টেমের চেয়ে বেশি খরচ হয়।

ডিজিটাল বাংলাদেশের যুগে, মানুষ একটি ডিজিটাল জাতীয় পরিচয়পত্র (জাতীয় পরিচয়পত্র) এবং ই-পাসপোর্ট পাওয়ার জন্য সংগ্রাম করছে। বিশেষ করে প্রবাসীদের সবচেয়ে সহন করা হয়। সমস্যা যে প্রবাসীদের সবচেয়ে সম্পর্কে অভিযোগ হলো: পুনরাবৃত্তি অভিযোগ জন্য হটলাইন যোগাযোগ করার জন্য প্রচেষ্টা পুনরাবৃত্তি ব্যর্থতা, অনলাইন ‘পাসপোর্ট খুঁজে পাওয়া যায়নি’ কয়েক মাস জমা পরে উত্তর, পরে পাসপোর্ট পরবর্তী জমা পাসপোর্ট দূতাবাসে উপস্থিত হয়নি, ইত্যাদি

পাসপোর্ট চাহিদা চেয়ে বেশি গত পাঁচ বছরে দ্বিগুণ হয়েছে। পাসপোর্ট অফিসের মতে, তারা বেশি 35,000 পাসপোর্ট একটি দিন সরবরাহ করছে। সাধারণত, সেখানে 15 দিনের মধ্যে 2 7 দিনের মধ্যে জরুরি অবস্থা আবেদন পাসপোর্ট ও সাধারণ আবেদন পাসপোর্ট বিক্রয়কালে জন্য নিয়ম আছে।

মেজর জেনারেল মো আইয়ুব চৌধুরী, পরিচালক ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট বিভাগের জেনারেল (ডিজি) বলেন, তারা প্রতিদিন পাসপোর্ট অনেকটা সরবরাহ করা হয়। যাইহোক, তিনি বলতে পারলাম না কত আবেদনকারীদের প্রতিদিন দেওয়া পাসপোর্ট করা হচ্ছে।

কতগুলো পাসপোর্ট আটকে আছে তা তিনি বলতে পারেননি। তিনি বলেন, এ মুহূর্তে তার কাছে তথ্য নেই। অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য আরেকটি মাথা ব্যাথা যে, তারা পাসপোর্ট জন্য সরকার নির্ধারিত ফি চেয়ে বেশি দাম দিতে বাধ্য হচ্ছে। অভিবাসন ব্যয় বেশি হওয়ার অন্যতম কারণ পাসপোর্টের পেছনে খরচ।

পাসপোর্ট প্রসঙ্গে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) মহাপরিচালক মো. শহিদুল আলম বলেন, ‘আমার এনআইডি থাকলে পাসপোর্ট করতে হয়রানি কেন? এটা সম্পূর্ণ অর্থহীন। তিনি আরও বলেন, ‘জরুরি পরিস্থিতিতে যে কোনো মুহূর্তে লোকজনকে বিদেশে যেতে হতে পারে। তিনি বলেন, পাসপোর্ট প্রক্রিয়া সহজ হলে অনেক কিছু করা যেত।

মোজাম্মেল হক, ইন্টারন্যাশনালের বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক সংস্থা (বায়রা) রিক্রুটিং বলেন, “পাসপোর্ট জন্য সরকারের ফি ৳ 5,000 হয়। এখানে আপনি 13 15 হাজার টাকায় দিতে হবে। কেন এটা? কেন যারা বিদেশে যান এবং রেমিট্যান্স পাঠাতে পাসপোর্ট পাওয়ার জন্য হয়রানির শিকার হওয়া উচিত? ‘

এ অবস্থায় সরকার পাসপোর্ট প্রক্রিয়া সহজ করতে বেশ কিছু উদ্যোগ নেয় গ্রহণ করেছে। সেই উদ্যোগের এক এর মাধ্যমে 2019. উচ্চ কারিগরি ই-পাসপোর্ট প্রবর্তনের বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী ডিজিটালাইজড বিশ্বের প্রবেশ করানো হয়। কিন্তু এই পদক্ষেপ সুফল এখনো পাওয়া গেছে।

নতুন সমাধান, নতুন সমস্যা

2019 সালে ই-পাসপোর্ট চালু উদ্দেশ্য পুরাতন মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) প্রতিস্থাপন করা। এনআইডি তথ্যের ভিত্তিতে ই-পাসপোর্ট দেওয়া হচ্ছে। পুরানো এমআরপি এবং এনআইডি তথ্যের মধ্যে কোনো অমিল থাকলে, ই-পাসপোর্ট আবেদন অবিলম্বে প্রত্যাখ্যান করা হয়।

এ বিষয়ে একটি নোটিশ বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, আগারগাঁও, ঢাকা বিবৃতি দেন, “জাতীয় পরিচয়পত্র / BRC দ্বারা জারি করা হয়েছে [জন্ম নিবন্ধন সনদ] কোনো অমিল হলে ই-পাসপোর্টের আবেদন স্বয়ংক্রিয়ভাবে সিস্টেম সফটওয়্যারে আটকে যায়। সেন্ট্রাল ক্লিয়ারেন্স মডিউল দ্বারা আবেদনগুলি নিষ্পত্তি করায় ই-পাসপোর্ট প্রাপ্তিতে দেরি হয়৷

এসব ক্ষেত্রে পাসপোর্ট প্রিন্ট না হওয়া পর্যন্ত ‘ধৈর্য ধরে’ অপেক্ষা করতে আবেদনকারীকে অনুরোধ করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে কতক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে তা উল্লেখ করা হয়নি। অধিদফতরের মহাপরিচালক আরও বলেন, এ ধরনের অসঙ্গতি ব্যাপক ছিল। এর ফলে বিলম্ব হয়।

সূত্র জানায়, অসঙ্গতি প্রায়ই NID, যা কঠিন আবেদনকারীদের পাসপোর্ট পেতে জন্য তোলে ত্রুটির কারণে ঘটে থাকে। সংখ্যা উল্লেখ না থাকলে সূত্র জানায় যে এই ধরনের তথ্য অমিল কারণে, ই-পাসপোর্ট সংখ্যক দেশ, যা অনেক ভ্রমণ এবং অভিবাসী শ্রমিকদের সমস্যা দেখা দেয় জুড়ে পাসপোর্ট অফিসের আটকে হয়েছে।

এনআইডিতে থাকা তথ্যে ত্রুটির জন্য আবেদনকারী সবসময় দায়ী নাও হতে পারে। এমআরপি পাসপোর্ট এবং এনআইডি পাওয়ার সময় কখনও কখনও কারও ঠিকানা পরিবর্তন হতে পারে। এই সমস্যাগুলি সমাধানের এখনই কোন সহজ উপায় নেই। তবে এগুলো ছাড়াও অন্যান্য সমস্যা থাকতে পারে।

17 এপ্রিল, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য পাসপোর্ট প্রক্রিয়া সরল এবং শীঘ্রই যতটা সম্ভব ই-পাসপোর্ট এর সাথে সম্পর্কিত সকল বিষয় সমাধানে প্রস্তাবিত। সভায় ত্বরান্বিত ও অভিবাসন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সেবা ত্বরান্বিত একটি, সুশৃঙ্খল নিরাপদ, নিয়মিত এবং দায়িত্বশীল পাসপোর্ট ইস্যু প্রক্রিয়া নিশ্চিত করার জন্য বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কার্যক্রম আলোচনা করেছেন।

NID, একা সবসময় পাসপোর্ট জারি করার অসুবিধা থেকে তোমাকে রক্ষা করতে পারবে না। কখনও কখনও পাসপোর্ট যদিও NID, সমস্ত তথ্য সঠিক পাওয়া যায় না। Bayra শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান সাবেক মহাসচিব বলেন, “যারা বিদেশে যেতে চান একটি পাসপোর্ট পেতে কষ্ট অনেক মধ্য দিয়ে যেতে। একটি অভিবাসী একটি জাতীয় পরিচয়পত্র, কেন অন্তত অপেক্ষার একটি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স জন্য মাসের পাসপোর্ট জারি সামনে থাকে? ‘

পুলিশের ছাড়পত্র পেতে অন্তত এক মাস লেগেছে বলে জানান তিনি। তবে একজন ব্যক্তি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাবেন কিনা তা নির্ভর করে তার বিরুদ্ধে মামলা আছে কি না।

শ্রম শিক্ষা বিষয়ক জাতীয় সমন্বয় কমিটির লেবার মাইগ্রেশন গ্রুপের সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, “৩২ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। মামলা থাকলে পাসপোর্ট ইস্যুতে বাধা হতে পারে না। প্রবাসীদের পাসপোর্টের ক্ষেত্রে এ ধরনের সব হয়রানি বন্ধে সরকারের কাছে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন প্রবাসীরা।

Source link

নিউজটি শেয়ার করুন সোশ্যাল মিডিয়াতে..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরণের আরো খবর জানতে..
© All Rights Reserved © 2022 www.dailyprobash.com
Bangla News DailyProbash.com